1. dailybanglarkhabor2010@gmail.com : দৈনিক বাংলার খবর : দৈনিক বাংলার খবর
বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত মুজিবনগর দিবসে জনসভা করবে আওয়ামী লীগ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কারিকুলাম যুগোপযোগী করার তাগিদ রাষ্ট্রপতির হাছান মাহমুদের সাথে গ্রিসের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক অনিবন্ধিত ও অবৈধ নিউজ পোর্টাল বন্ধে পদক্ষেপ নেয়া হবে-তথ্য প্রতিমন্ত্রী বাগেরহাটে পাওনা টাকা চাওয়ায় বিকাশ এজেন্টকে মারধর ও টাকা লুটের অভিযোগ শিশুদের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট সকলের দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে-সিটি মেয়র বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিনামূল্যে ৫’শ রোগিকে চিকিৎসা সেবা দাকোপে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ প্রদর্শনী-২০২৪ উদযাপনে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহন ফরিদপুরে বাস-পিকআপ ভ্যানের সংঘর্ষ: নিহত বেড়ে ১৪

ঢাকা বহুমাত্রিক সমাধান খুঁজতে জি-২০ এর সাথে কাজ করতে চায়-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ৩১ আগস্ট, ২০২৩
  • ১২৮ বার পড়া হয়েছে

ছবি: সংগৃহীত
বাসস::পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ বিশ্ব সংকটের বহুমাত্রিক সমাধান খুঁজতে জি-২০ অংশীদারদের সাথে একত্রে কাজ করার অপেক্ষায় আছে।

তিনি বলেন, ‘নয়াদিল্লিতে জি-২০ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অংশগ্রহণ ঢাকা-দিল্লি­ সম্পর্কের সুবর্ণ অধ্যায়ে আরও একটি পালক যোগ করবে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আজ ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে ‘জি-২০ সামিট: ঢাকা থেকে নয়া দিল্লি’ শীর্ষক আলোচনার উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

বাংলাদেশে ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় ভার্মা এবং জি-২০তে বাংলাদেশের শেরপা হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তৃতা করেন।

বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি এবং জি-টোয়েন্টি এমপ্লয়্যার অ্যাডভোকেট সেলিমা আহমেদ এমপিও বক্তব্য রাখেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশ বহু অংশীদারদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে জি-২০ প্রক্রিয়ায় দৃশ্যমান ও অর্থবহ অবদান রাখতে পারে।

মোমেন বলেন, ‘আসন্ন জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ বিশ্বব্যাপী টেকসই উন্নয়নের কারণকে চ্যাম্পিয়ন করার জন্য আমাদের মূল্য-চালিত কূটনৈতিক প্রচেষ্টার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।’
প্রধানমন্ত্রীকে শীর্ষ সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে এবং তিনি বিভিন্ন জি-২০ প্রক্রিয়ার সাথে জড়িত থাকার প্রকৃতি এবং বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়েছেন।

তিনি ২০১৬ এবং ২০১৮ সালে যথাক্রমে জাপান এবং কানাডায় জি-৭ আউটরিচ মিটিংয়ে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

তিনি সম্প্রতি আফ্রিকার বাইরে থেকে আমন্ত্রিত নেতাদের একজন হিসেবে জোহানেসবার্গে ব্রিকস আউটরিচ শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এটা ভারতীয় জি-২০ প্রেসিডেন্সির কৃতিত্ব যে এটি গ্লোবাল সাউথের সমস্যাগুলোকে সামনে নিয়ে এসেছে। যেখানে তারা বাংলাদেশকে ইচ্ছুক অংশীদার হিসেবে গণ্য করতে পারে।

মোমেন বলেন, ‘আমার ভারতীয় সমকক্ষ এস. জয়শঙ্কর একটি পুনঃবিশ্বায়নের যে আহ্বান করেছিলেন তা আমি স্বীকার করছি যা গ্লোবাল সাউথের বেশিরভাগ দেশকে শুধুমাত্র প্রাপক বা ভোক্তা হিসাবে বিবেচনা করে এমন মডেলের চেয়ে বেশি অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং বৈচিত্র্যময়।’

বাংলাদেশ ভারতীয় জি-২০ প্রেসিডেন্সি দ্বারা চিহ্নিত ছয়টি বিষয়ভিত্তিক অগ্রাধিকার সম্পূর্ণ মেনে নিয়েছে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন ‘আমরা ইতোমধ্যেই আন্তর্জাতিক সোলার অ্যালায়েন্স, ইন্টারন্যাশনাল বিগ ক্যাট অ্যালায়েন্স এবং কোয়ালিশন ফর ডিজাস্টার-রেসিলিয়েন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচারের মতো বৈশ্বিক অংশীদারিত্বে যোগ দিয়েছি।’

মোমেন আরো বলেন, ‘আমরা একটি স্মার্ট সরকার এবং অর্থনীতি গড়ে তুলতে আমাদের নিজস্ব পদক্ষেপের জন্য ভারতের আন্তঃ-চালিত ডিজিটাল পাবলিক পরিকাঠামোর ব্যাপক রোল-আউট থেকে শিক্ষা নেয়ার আশা করি। আমরা বিশ্বাস করি গ্লোবাল সাউথের বাকি অংশগুলির সাথে শেয়ার করার জন্য নারী নেতৃত্ব উন্নয়ন আমাদের গুরুত্বপূর্ণ অন্তর্দৃষ্টি রয়েছে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক বাংলার খবর
Theme Customized By BreakingNews