1. dailybanglarkhabor2010@gmail.com : দৈনিক বাংলার খবর : দৈনিক বাংলার খবর
রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ১১:০৭ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
এপিএ বাস্তবায়নে প্রথম স্থানে আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নবনিযুক্ত সেনাবাহিনী প্রধানের সৌজন্য সাক্ষাৎ বটিয়াঘাটায় বাংলাদেশ আ’লীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত কোস্টগার্ডের অভিযানে ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক দক্ষতা উন্নয়ন ও সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র অস্ট্রেলিয়াকে ২১ রানে হারিয়ে আফগানিস্তানের ইতিহাস আওয়ামী লীগের মূল শক্তি হচ্ছে এদেশের জনগণ-শেখ হাসিনা ইসরাইলি হামলায় নিহত ৪৫০ পরীক্ষার্থী ছাগলকাণ্ডে ধরা মতিউর, অনুসন্ধানে নেমেছে দুদক আ.লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সভায় যোগ দিয়েছেন শেখ হাসিনা

নারীর ক্ষমতায়নের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত অপরাজিতারা রিজিয়া পারভিন

  • প্রকাশিত: সোমবার, ২০ মে, ২০২৪
  • ২১ বার পড়া হয়েছে

বাগেরহাট প্রতিনিধি :: আমাদের সমাজ এখনো পুরোপুরি নারীবান্ধব নয়। ‘নারী-পুরুষ সমান অধিকার ‘ ট্যাগলাইন হাতে নিয়ে এখনো নারীদের হাঁটতে হয় তার অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে। পুরুষতান্ত্রিক সমাজের যাতাকলে বহু নারীই নিজেকে গুঁটিয়ে নেন এক কোণে। কিন্তু কেউ কেউ আবার শত প্রতিবন্ধকতা ঠেলে সোচ্চার হন অধিকার আদায়ে, ছিনিয়ে আনেন সফলতা নামের সোনার হরিণ। তেমনি এক লড়াকু নারী অপরাজিতা রিজিয়া পারভিন। বর্তমানে বাগেরহাট সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান।
তনি ১৯৭৬ সালে বাগেরহাট জেলার রামপাল উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নের চিত্রা গ্রামের এক রক্ষণশীল নিম্ম মধ্যবিত্ত কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।
উন্নয়ন সংস্থা রূপান্তরের সাথে কাজ করতে যেয়ে তিনি নিজস্ব চিন্তা চেতনা ব্যাপক পরিবর্তন করেন। এবং নিজেকে একজন উন্নয়ন কর্মী হিসাবে গড়ে তুলতে সচেষ্ট হন। তিনি দিনের কাজ দিনে শেষ করতে পছন্দ করেন। নারী-পুরুষের সমতায় বিশ^াস করেন এবং নারী ও শিশুসহ সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠির উন্নয়নে কাজ করতে ভালবাসেন।
তিনি সাংগঠনিক কাঠামোর ভিতরে পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধি এবং দেশে-বিদেশে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেকে একজন উন্নয়ন কর্মী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন। বর্তমানে তিনি এখন রাষ্ট্রের স্থানীয় সরকার কাঠামোর মধ্যম স্তরে উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তাকে বাংলাদেশ জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদ আইন ২০১৯ এর ৭ (১) (ণ) ধারা অনুযায়ী “বিশিষ্ট সমাজকর্মী” এর আওতায় বাংলাদেশ জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদে পরিচালানো বোর্ডের ৬৪ জেলা থেকে “বিশিষ্ট সমাজকর্মী” মনোনয়ন দিয়ে জারীকৃত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ৬৪ জনের মধ্যে ২৮নং তালিকা ভুক্ত বাগেরহাট জেলার সমাজকর্মী হিসাবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।
নারীর ক্ষমতায়ন প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ সরকারের জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ প্রকল্পের আওতায় বাগেরহাট জেলায় ২০১৮ সালে বাগেরহাট জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে শিক্ষা ও চাকুরী ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য শ্রেষ্ঠ জয়িতা এ্যাওয়াড অর্জন করেন।
২০১৯ সালে খুলনার রুপান্তর নারীর রানৈতিক ক্ষমতায়নের কার্যক্রম শুরু করেন। তখন রুপান্তর সুইজারল্যান্ডের আর্থিক সহযোগিতায় ও হেভেটাস ইন্টার কোঅপরেশনের নেতৃত্বে মাঠপর্যায়ে অপরাজিতা নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে কার্যক্রম শুরু হয়।
এছাড়া তিনি গণপ্রতিনিধিত্ব অধ্যাদেশের ৯০বি অনুযায়ী ২০২০ সালের মধ্যে সকল রাজনৈতিক দলের সকল কমিটিতে কমপক্ষে ৩৩% নারীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত না হওয়ায় এর মেয়াদ ২০২০ থেকে ২০৩০ সাল করার দাবিতে নারীনেত্রীদের নিয়ে মানববন্ধন করেছেন। এবং বাগেরহাট জেলা আওয়ামীলীগ, জেলা জাতীয়তাবাদী দল ও জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি/সাধারন সম্পাদক সহ মাননীয় সংসদ সদস্যদের স্মারকলিপি দিয়েছেন। রাজনৈতিক দলের সকল কমিটিতে ৩৩% নারীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার জন্য এডভোকেসী কর্মসূচী চলমান রেখেছেন। অপরাজিতাদের সাথে নিয়ে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা, মানববন্ধন ও সচেতনতা ক্যাম্পেইন চলমান রেখেছেন।
তিনি আরো বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ১০ টি উদ্যোগের অন্যতম উদ্যোগ নারীর ক্ষমতায়ন। রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইন ২০৩০ সালের মধ্যে সকল রাজনৈতিক দলের সকল পর্যায়ের কমিটিতে ৩৩% নারীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালে উপজেলা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ে নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন প্রতিষ্ঠা, নারী নেতৃত্বকে দৃশ্যমান করা, নারী শিক্ষা বিস্তার, নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে উদ্যোক্তা তৈরী নানাবিধি বিষয়কে সামনে রেখে “নারী উন্নয়ন ফোরাম” গঠন করার অনুমতি দিয়েছেন এবং গঠনতন্ত্র অনুযায়ী মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানকে ফোরামের সভাপতির দায়িত্ব পালন করার সুযোগ তৈরী করে দিয়েছেন। ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি তিনি নারীদের উপজেলা পরিষদে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরী করে দিয়েছেন। একই সাথে ২০১৫ সালে গেজেট দ্বারা নারী উন্নয়ন ফোরামকে কর্মসূচী বাস্তবায়নের জন্য উপজেলা পরিষদের উন্নয়ন বাজেটে ৩% পর্যন্ত নারী উন্নয়ন ফোরামের অনুকুলে বরাদ্ধ দিয়েছেন।পরিশেষে তিনি বলেন দক্ষিণবঙ্গের উন্নয়নের রূপকার আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক শেখ হেলাল উদ্দিনে নির্দ্দেশনা, বাগেরহাট-০২ আসনের এমপি শেখ তন্ময়ের সহযোগিতা এবং উপজেলা পরিষদের সহযোগিতা নিয়ে মাঠপর্যায়ে আমি র্দীঘ ২৩ বছরের কাজের অভিজ্ঞতাকে ব্যবহার করে বাগেরহাট সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং বাগেরহাট জেলা ও উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরাম-এর সভাপতি এবং বাগেরহাট জেলা অপরাজিতা নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক ও খুলনা বিভাগীয় অপরাজিতা নেটওয়ার্কের সভাপতি হিসাবে আমি এখন আরো সাফল্যের সাথে নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করতে পারছি। এবং আগামীতে ও পারবো ইনশাল্লাহ। আমাদের সকলের প্রচেষ্ঠায় বাগেরহাট সদর উপজেলা পরিষদ হবে মানবিক ও জেন্ডারবান্ধব।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত দৈনিক বাংলার খবর
Theme Customized By BreakingNews